হায় বাঙালি হায়

হায় বাঙালি হায়। পৃথিবীর সর্বত্তম আশ্চর্য্যের নামই বাঙালি। না এতে আর আশ্চর্য্য হওয়ার কি আছে। এমন জাতি সত্যিই বিশ্বে আর দুটি নাই। কথায় বলে পাগলেও নিজের বুঝ বোঝে। কিন্তু বাঙালি? বাঙালি কি নিজের বুঝ বোঝে? ইতিহাসের পাতা উল্টালে কি কোথাও খুঁজে পাওয়া যাবে তেমন কোন সত্য? তাহলে বাঙালি কোন সত্যে বিশ্বাস করে? বাঙালির বিশ্বাসের নোঙর... Continue Reading →

Advertisements

ভারতবর্ষ ও ধর্ষণ সংস্কৃতি

ভুমিকা আধুনিক ভারতবর্ষ আসলেই বর্ষব্যাপি ধর্ষণের মহোৎসব। না ধর্ষণ কথাটি শুনলেই যে নারীর শরীর আর তার বিবস্ত্র সম্ভ্রমের ছবি ফুটে উঠতেই হবে তার কোন মানে নেই। ধর্ষণ শুধুই নারীরই হয় না। ধর্ষণ করা হয় মূলত দুর্বল নিরীহের উপরই। আর সমাজের সকল দুর্বল অংশকেই কোন না কোন ভাবে এই ধর্ষণের শিকার হতে হয় এই ভারতের মহামানবের... Continue Reading →

সাহিত্যিকের ছোবল!

  একজন অতি বিখ্যাত ঔপন্যাসিক, আর একজন খ্যাতিমান কবিকে সম্প্রতি পরামর্শ দিয়েছেন ফেসবুকের মতো ছোটখাটো প্ল্যাটফর্ম ছেড়ে বেরিয়ে আসতে। কারণ বড়ো কবিদের নাকি এমন সোশ্যাল মিডিয়ায় মানায় না। যেখানে পাঠক অতি সহজেই পেয়ে যাবে বিখ্যাত সেই কবির লেখা। স্বস্নেহ এই সদুপোদেশের জবাবে মিনতি ভরে সেই খ্যাতিমান কবিও নাকি বিখ্যাত সেই ঔপন্যাসিককে জানিয়েছিলেন যে, ফেসবুকের কোন... Continue Reading →

সাম্প্রতিক বাংলাদেশ একটি সমীক্ষা

একটি দেশের অধিকাংশ মানুষের কাছে যখন দেশের থেকেও, আপন স্বদেশবাসীর থেকেও, জাতীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য থেকেও কোন একটি নির্দিষ্ট ধর্মগ্রন্থ বড়ো হয়ে ওঠে; বেশি মূল্যবাণ হয়ে দাঁড়ায় এবং যদি সেইটি আবার ভিনদেশী গ্রন্থ হয় তবে যে কোন দেশের ক্ষেত্রেই সে বড়ো সুখের সময় নয়। যে কোন জাতির পক্ষেই তা আত্মহত্যার নামান্তর। এই সাধারণ সত্যটি আজ... Continue Reading →

সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও আধুনিকতা

ঐতিহ্য মূলত আঞ্চলিক। আধুনিকতা মূলত সীমানা ডিঙ্গিয়ে যাওয়া। ঐতিহ্য প্রবাহিত হয় উত্তরাধিকারে। আধুনিকতা প্রবাহিত হয় আর্থ-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রভাবে। এখন এই ঐতিহ্য যেমন আঞ্চলিক, ঠিক তেমনই উত্তরাধিকারও সাম্প্রদায়িক। কথাটা শুনতে প্রথমেই মন সাড়া দেয় না, কিন্তু একটু ভেবে দেখলেই বিষয়টির গুরুত্ব অনুধাবন করা সম্ভব। মানুষের ইতিহাস মূলত বিভিন্ন অঞ্চলের ও জনপদের আঞ্চলিক ইতিহাস। সেই জন্যে... Continue Reading →

সহবাসের অভিমুখ

দুইজন প্রাপ্তবয়স্ক নরনারীর পারস্পরিক সম্মতিতে ঘটা সহবাসের অভিমুখ কোনদিকে? ভালোবাসায় না শুধুমাত্র তাৎক্ষণিক যৌন পরিতৃপ্তিতেই সীমাবদ্ধ? নাকি বৈবাহিক পরিণতির অভিমুখেই। এই বিষয়টি তো সেই দুইজন নরনারীর পারস্পরিক চাহিদা ও পরিকল্পনার উপরেই নির্ভরশীল হওয়ার কথা। সেখানে সমাজের মাথা গোলানোর দরকারই বা কি? এখন মুশকিল হলো নরনারী যখন পারস্পরিক বিশ্বাস ভালোবাসা থেকে বেড়িয়ে এসে তাদের একান্ত সম্পর্ককে... Continue Reading →

সমাজ ও সাম্প্রদায়িকতা

সমাজের সাথে সাম্প্রদায়িকতার সম্পর্ক অবিচ্ছেদ্য। প্রাথমিক ভাবে কথাটি শুনতে খারাপ লাগলেও কথাটি সত্য। কারণ এটি একটি অতি বড়ো সমাজবাস্তবতা। প্রতিটি সমাজ অন্য সব সমাজ থেকে ভিন্ন। এই ভিন্নতার মূল কারণ ভাষা ও সংস্কৃতি। সেটা প্রকৃতিগত। যার পশ্চাত্যে ক্রিয়াশীল ভৌগলিক অবস্থানগত বৈশিষ্ট। কিন্তু তাতে বিভিন্ন সমাজের মধ্যে পারস্পরিক দ্বন্দ্বের বিশেষ অবকাশ থাকে না। পারস্পরিক ভিন্নতাকে স্বীকৃতি... Continue Reading →

সংস্কার বিশ্বাস ও আরাধনা। আশীর্বাদ না অভিশাপ?

সামাজিক পরিসরে আমাদের ব্যক্তি জীবনে সংস্কার বিশ্বাস ও পূজার ভূমিকা অত্যন্ত গভীর ও গুরুত্বপূর্ণ! এমনকি যিনি নাস্তিক তাঁর জীবনেও এই একই কথা সমান ভাবে প্রযোজ্য। সংস্কার বিশ্বাস ও পূজা কিন্তু শুধুই আধ্যাত্মিকতা ও সাম্প্রদায়িক ধর্মাচারণের বিষয়ীভূত নয়। জীবনের অন্যান্য সকল বিষয়েই এই তিনটির বিশেষ ভুমিকা দেখা যায়। বস্তুত আমাদের নিজস্ব ব্যক্তিত্বের পরতে পরতে এই তিনটির... Continue Reading →

শিক্ষার ভাষা ও মাতৃভাষা

  কবি বলেছিলেন “ফুল ফুটুক না ফুটুক আজ বসন্ত”। আমরাও তেমনই দেখতে পাই, বাংলাভাষা বাঁচুক না বাঁচুক আজ একুশে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। অনেককেই এমন কথাও বলতে শোনা যায়, একুশ মানেই বাংলা ভাষা নয়। একুশ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। তাই এই দিনটি সকল ভাষারই। বাংলার একার নয়। অর্থাৎ তাদের মতে একুশে ফেব্রুয়ারীতে বাংলা নিয়ে লাফালাফি করার কোন... Continue Reading →

Powered by WordPress.com.

Up ↑